Home   |   About   |   Terms   |   Contact    
RiyaButu
Read & Learn

অন্তিম পরীক্ষা


ত্রিপুরার ছোট গল্প


All Bengali Stories    24    25    26    27    28    29    30    31    32    33    34    (35)     36      

হরপ্রসাদ সরকার







অন্তিম পরীক্ষা
ত্রিপুরার ছোট গল্প
- হরপ্রসাদ সরকার, ধলেশ্বর-১৩, আগরতলা
০৫-০৯-২০১৮ ইং



দুই বন্ধু ছিল আকাশ আর মাটি। দু'জনই খুব বুদ্ধিমান আর জ্ঞানী, তবে স্বভাব দু'জনেরই আলাদা। আকাশ খুব হালকা স্বভাবের। সে কারোর কোনও ক্ষতি না করলেও সব সময় খাম-খেয়ালি-পনা নিয়ে থাকত। অপরের জিনিসের প্রতি ওর লোভ ছিল প্রচণ্ড, তবে সে কোনও দিন কারোর কোনও জিনিস চুরি করেনি অথবা নষ্ট করেনি। ওদিকে মাটি সব সময় ভারি-ভরকম এবং গম্ভীর থাকত, খুব নিয়ম-নীতি মেনে চলত, সবার সাথে নিয়ম-নীতি নিয়ে চর্চা করত। কারোর কোনও জিনিসের প্রতিই তার লোভ ছিল না। মাটি আর আকাশ দু'জনই ছিল পরোপকারী, তাই গ্রামের লোক তাদের যথেষ্ট আদর-সম্মান করত।



তাদের খবর রাজার কানেও গেল। কিছুদিন পর একদিন রাজবাড়ির কোষাগারে রাজকর্মচারী নিয়োগের কথা সারা রাজ্যে ঘোষণা করা হল। প্রতিযোগী-পরীক্ষার মাধ্যমে রাজকর্মচারী নিয়োগ করা হবে। দূর-দূর থেকে অনেক প্রতিযোগীর আগমন ঘটল। আকাশ আর মাটিও গেল সেই প্রতিযোগিতায়। যথা সময়ে ধাপে-ধাপে বিভিন্ন পরীক্ষা শুরু হল। সবাইকে পিছনে ফেলে মাটি আর আকাশ এগিয়ে গেল। অবশেষে এই দুই বন্ধুই শুধু প্রতিযোগিতায় টিকে থাকল। অন্তিম পরীক্ষার জন্য তাদের ডাকা হল।

একটি অন্ধ-বারান্দা পেড়িয়ে এক কক্ষ থেকে অন্য কক্ষে যাবার নির্দেশ দেওয়া হল তাদের। সরু, নির্জন, প্রায় অন্ধকার বারান্দা দিয়ে ওরা এগিয়ে যেতে লাগল। বারান্দার চারিদিকে ঘন ঝোপ-ঝাড়। বারান্দার ঠিক মাঝামাঝি জায়গায় একটি স্থানে একটি গোল বড় থামের পাশে একটি টেবিল রাখা আছে। আর সেই টেবিলের উপরে রাখা একটি রূপার বড় পাত্র থেকে প্রচুর স্বর্ণ-মোহর উপচে পড়ছে। পাশের সেই থামের গায়ে লেখা, "আপনাদের পারিশ্রমিক একটি স্বর্ণ-মোহর। দয়া করে একটি স্বর্ণ-মোহর তুলে নিন।"

আকাশ নিজের স্বভাবের মত দুই-তিনটি স্বর্ণ-মোহর তুলে উপরের দিকে ছুঁড়ে দিল আর সেগুলি লুফে নিয়ে আবার স্ব-স্থানে রেখে দিল। তারপর সে স্বর্ণ-মোহরগুলির উপর ঝুঁকে পড়ে তাদের গন্ধ শুকতে লাগল। শেষে হাসতে হাসতে বলতে লাগল,
"রে স্বর্ণ দামী তুই ঠিক,
তোর রূপও আছে অতুল-
তবে গন্ধ তোর নাই
যেমন গোলাপ ফুল।"
এই বলে সে চিমটি দিয়ে একটি স্বর্ণ-মোহর তুলে সামনের দিকে হেঁটে গেল। তার পিছু-পিছুই আসছিল মাটি। মাটি সেই স্বর্ণ-মোহরগুলি দেখেই তাদের সামনে থমকে দাঁড়িয়ে গেল। সে সেই স্বর্ণ-মোহরগুলির দিকে অনেকক্ষণ তাকিয়ে কি যেন ভাবল। তারপর আশে-পাশে চোখ ঘুরিয়ে দেখল। যেই মাটি সব সময় নীতিজ্ঞান নিয়ে পড়ে থাকত, সেই অন্ধকারে তার সেই নীতিজ্ঞান লোপ পেল। কোনও নীতিজ্ঞানই আর তার কাজে এলো না। অন্ধকার আর নির্জনতার সুযোগ নিয়ে সে চার-পাঁচটি স্বর্ণ-মোহর নিজের জামার পকেটে লুকিয়ে ফেলল। লোভ এসে তার নীতিজ্ঞানকে হারিয়ে দিল। বেশ খুশি মনে সামনের দিকে এগিয়ে গেল মাটি।

কিন্তু সেই আবছা আলোতে দু'জনের কেউই লক্ষ্যই করেনি যে, সেই নকল জীর্ণ থামের ভীতরে লুকিয়ে আছেন স্বয়ং মহামন্ত্রী। ক্ষুদ্র দুটি ছিদ্র দিয়ে উনি আকাশ আর মাটির কার্যকলাপ পরিষ্কার দেখছিলেন।





◕ This page has been viewed 66 times.


ত্রিপুরার গোয়েন্দা গল্প:
মাণিক্য   
সর্দার বাড়ির গুপ্তধন রহস্য   
প্রেমিকার অন্তর্ধান রহস্য   


Top of the page

All Bengali Stories    24    25    26    27    28    29    30    31    32    33    34    (35)     36