Home   |   About   |   Terms   |   Contact    
RiyaButu
A platform for writers

জঙ্গলের সেনাপতি


Bengali Short Story


All Bengali Stories    45    46    47    48    49    50    51    52    53    (54)    

লেখক - - প্রজ্জ্বোল মজুমদার, ধলেশ্বর - ১৩, আগরতলা







জঙ্গলের সেনাপতি
লেখক - প্রজ্জ্বোল মজুমদার, ধলেশ্বর - ১৩, আগরতলা
সপ্তম শ্রেণী, মা আনন্দময়ী বিদ্যাপীঠ, আগরতলা
২৮-০৮-২০১৯ ইং
Jokes



◕ Send your story to RiyaButu.com and get ₹ 500/- Details..

◕ Bengali Story writing competition. Details..




◕ জঙ্গলের সেনাপতি

এক গ্রামে এক দরিদ্র কৃষক বাস করত। সে অতি পরিশ্রম করে তার ঘরের পাশের ছোট্ট জমিতে শাক-সবজি চাষ করত। কিন্তু একটি চোর এসে নিয়মিত শাক-সবজি চুরি করে নিয়ে যেত। বহুরাত জেগে দরিদ্র কৃষক তার জমি পাহারা দিল, বাঁশ দিয়ে উঁচু করে বেড়া দিল, কিন্তু তবু দুষ্ট চোরটিকে আটকাতে পারল না। চোর আসত আর চুরি করে নিয়ে যেত।

কৃষকের পরিশ্রমের ফসল চোর চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে, আর কৃষক চেয়েও কিছু করতে পারছে না; এতে খুব মন-মরা হয়ে একদিন সে তার জমির পাশের নদীর ধারে উদাস হয়ে বসে রইল। হঠাৎ সে শুনতে পেল কেউ তাকে ডাকছে। সে পিছন ফিরে তাকাল, কিন্তু কাউকে দেখল না। সে ভাবল এটা তার মনের ভুল। একটু পরে আবার সে সেই ডাক শুনতে পেল। এবার সে ভাল ভাবে পিছন ফিরে তাকাল আর বুঝতে পারল, একটু দুরের একটি জঙ্গলে একটি মরিচ গাছ দুলে-দুলে উঠছে আর তাকে ডাকছে। গাছটি বলল, "হরিরাম, আমিই তোমাকে ডাকছি। এই জঙ্গলের আমি সেনাপতি। আমি থাকতে কেউ এভাবে উদাস হয়ে বসে থাকবে, আমি তা চাই না। তোমার কী সমস্যা আমাকে খুলে বল। আমি আমার যথাসাধ্য চেষ্টা করব।"

কৃষক জঙ্গলের সেনাপতির কথা শুনে খুব অবাক হল। সে এগিয়ে গিয়ে জঙ্গলের সেনাপতিকে চোরের ঘটনাটি খুলে বলল। জঙ্গলের সেনাপতি বলল, "চোরের এত সাহস! আমি থাকতে সে আমার এলাকাতে চুরি করে যাচ্ছে! হরিরাম, মন খারাপ করো না, তুমি কিছুই ভেবে না। আমি ব্যাপারটা দেখছি। যেমনটা বলে-বলে যাব, তুমি তেমন-তেমনটা করে যাবে; দেখবে তখন লীলা! সবার আগে তুমি আমার একটি ডাল এখান থেকে নিয়ে গিয়ে নিজের জমির এক কোনে পুঁতে দাও। আর নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়ো।" এই বলে 'জঙ্গলের সেনাপতি' মরিচ গাছটি দরিদ্র কৃষকটি একটি মন্ত্র শিখিয়ে দিল।

সেদিন গভীর রাতে চোর এল দরিদ্র কৃষকের ক্ষেতে। কৃষক তখন গভীর ঘুমে, হঠাৎ তার কানে এল একটি ফিস-ফিসানি শব্দ। সে জেগে উঠতেই শুনতে পেল মরিচ গাছটি ফিস-ফিস করে তাকে বলছে, "চোর এসেছে, চোর এসেছে। তোমার ক্ষেতে চোর এসেছে। চোর ধরতে তুমি আমার দেওয়া সেই মন্ত্রটি 'মরিচ রে মরিচ, আজকে তুই চোরটারে ধরিস' জপ শুরু করে দাও।" সাথে-সাথে কৃষক মন্ত্র-জপ শুরু করল, "মরিচ রে মরিচ, আজকে তুই চোরটারে ধরি! মরিচ রে মরিচ, আজকে তুই চোরটারে ধরিস!"

যেমন কথা তেমন কাজ। মন্ত্র-যজ্ঞ শুরু হতেই চোরটি তার চারিদিকের গাছের মধ্যে রসগোল্লা, লালমোহন আর ক্ষীরমোহন ঝুলে থাকতে দেখল। গাছে যে রসগোল্লা, লালমোহন ধরে না, সে তা ভুলেই গেল। মনের আনন্দে সে একটি রসগোল্লা গাছ থেকে পেড়ে মুখে দিতেই বাজি-ফাটল। তার মুখে এমন ঝাল-লাগা-লাগল যে, সে গায়ের জোরে 'আও-আও' করে চীৎকার করে উঠল। এত বড় চীৎকার দিতে গিয়ে সে এত বড় হা করে উঠল যে, তার মুখের দুই চোয়ালে খিল লেগে গেল। চোয়াল আটকে, ঝালে আর ব্যথায় চোর ওখানেই 'আও-আও' করতে-করতে উল্টে কাৎ হয়ে পড়ে গেল। মাটিতে পড়ে গিয়ে সে দেখতে পেল, গাছের রসগোল্লাগুলি হি-হি করে হাসতে আর দূরে দাঁড়িয়ে আছে জঙ্গলের এক সেনাপতি, মরিচ গাছ। ( সমাপ্ত)



◕ Send your story to RiyaButu.com and get ₹ 500/- Details..

◕ Bengali Story writing competition. Details..




◕ This page has been viewed 458 times.

গোয়েন্দা গল্প ও উপন্যাস:
নয়নবুধী   
মাণিক্য   
সর্দার বাড়ির গুপ্তধন রহস্য   
প্রেমিকার অন্তর্ধান রহস্য   
লুকানো চিঠির রহস্য   
কান্না ভেজা ডাকবাংলোর রাত    


All Bengali Stories    45    46    47    48    49    50    51    52    53    (54)