Home   |   About   |   Terms   |   Contact    
Read & Learn
 

বিনি সুতার বাঁধন

বাংলা কবিতা

-হরপ্রসাদ সরকার

All Pages     1    (2)     3    4    5    6    7 ...


An offer to make a Website for you.

hostgator




◍   ◍   পাষাণের প্রেম   ◍   ◍
তারে চিনতে গিয়েই হারিয়ে গেলাম
অচিন এক পথে -
একা একা ভাবি একায়
কেন দেখা হল তার সাথে ?

সে দেখল ফিরে একটি বার
না জানি কেন আমায়?
আজো পাষাণ হয়ে আছি
তার সেই চাওয়ায় ।

মন বলে, ফিরে আসবে বলে তাই
করে গেল পাষাণ -
নিজের জন্যই রেখে গেল
আমার মাঝে প্রাণ ।।





◍ ◍   চাঁদ   ◍ ◍
ভেঙে গেল চাঁদ দেখ
ঝিলের ঢেউ এ
নেচে নেচে এল হাওয়া
তা দেখতে পেয়ে

থমকে আকাশে মেঘ
দাঁড়ায়ে ক্ষণিক -
ভেবে পেল না সে
“দেখল কি ঠিক?”

চাঁদ হাসে মৃদু মৃদু
গগনে থেকে
“কত ভালবাসে দেখ
সবাই আমাকে?”





◍ ◍   তুমি জানতে !!   ◍ ◍
যেদিন অভিমান করেছি
সারারাত অঝরে কেঁদেছি ।

মোর ভালবাসা কত গভীর?
হয়তো তুমি জেনেছিলে -
তাইতো আমার অভিমান
নীরবে মেনেছিলে ?

অবাক হয়ে কত
মনে মনে খুব ভালবেসেছি -
আবার যখন তোমায় আমার
পথের পাশে দেখেছি ।।





◍ ◍   কেন তবে দূরে?   ◍ ◍
পথের ধুলায় ছিল একটি ফুল
উঠিয়ে নিলে হাতে
ভেবেছিলে আমার স্মৃতি
কিছু, মিশেছিল তাতে ।

যেদিন শুনেছি সে কথা
খুব অবাক হয়েছি
আজো তো যাওনি ভুলে !
আমিও কি ভুলতে পেরেছি?





◍ ◍   পরাজয়   ◍ ◍
পাষাণ হয়ে থাকব আমি
জীবন ভর প্রিয়
আমার মতই আমাকে
থাকতে শুধু দিয়ো ।

নিজেকে রাখব বেঁধে
নিজের বাঁধন দিয়ে
পাশাপাশি চোখের মতন
থাকব একা হয়ে ।

অভিযোগ থাকবে না গো
কোন কথা নিয়ে-
শুধু বলব আবার তুমি
হারালে সব পেয়ে ।





◍ ◍   ভালবাসার সাগর   ◍ ◍
সে মনের মাঝে চেপে গেছে
ভালবাসার সাগর
শুনেছি সেই সাগর নাকি
আজো নেয় মোর খবর।।
ঝড় আসে তুফান আসে
সেই সাগরের মাঝে
আজো সে উদাস চোখে
তাকিয়ে থাকে সাঁঝে।।





◍ ◍   প্রাণের মানুষ   ◍ ◍
খুঁজতে প্রাণ, পাথর পেলাম
মূল্য যাহার নাই
সবাই ছেড়ে গেছে আমায়
সেইই ছাড়ে নাই।
তার পানেতেই চেয়ে থাকি
আর ভাবি তার গুনটা।
আমি জানি আর সেই জানে
আছে কোথায় প্রাণটা ?
রাজার মত নয়তো সে
তবে রাজার মত মনটা।
তাকে দেখেই প্রাণ জুড়ায়
ফিরে আসে জীবনটা।





◍ ◍   বিনি সুতার বাঁধন   ◍ ◍
তুমি চাঁদ হইয়ো গো প্রিয়, আমি হব চাঁদের হিয়া –
সারা রাত থাকব জড়ায়ে, তোমারে বুকে নিয়া।
তুমি শিউলি হইয়ো গো শরতের ভোরে
জড়াবো তোমায় অনুরাগে বিনি সুতার ডোরে।
সাঁঝে হইয়ো গো তুমি তুলসী তলার বাতি
তোমার শিখাতেই সাজাবো আমার সকল আরতি।
তুমি ছন্দে ছন্দে বয়ে যেও গো ঝর্না হয়ে
কলতান হয়ে চলবো আমি তোমার পায়ে পায়ে।





◍ ◍   সূচনা   ◍ ◍
◍ ◍   - অমরেশ দেবনাথ   ◍ ◍
শুরু হউক সূচনা নূতন সকালের হে অরুণোদয়ে, উদয়নে,
মঙ্গল আলোতে মঙ্গল প্রীতে হৃদয় তব প্রসারে; উন্মোচনে,
অসীম মেলাতে পাপড়ি মেলে, বিকশিত কুসুমে হে আনন্দে,
শুরু হউক প্রেম তবে তোমারি ছুঁয়াতে, এই অভিসারে!
যত আছে বেদনা, তাপ আর পীড়া, যাক তবে হারিয়ে,
তোমারি পরশ লাগুক এ হৃদয়, অবগুণ্ঠন তব সরায়ে,
নূতনের রথ তবে এসো মঙ্গলাতে, কালো সব বিদায়ে,
হউক সূচনা হে আনন্দলোকের, প্রকাশিত হৃদয় কুসুমে!
কিছু ছিল মাধবী আশালতাতে, মনেরি ডালে তবে লুকায়ে,
সেই লতাতে হউক সূচনা হে, নূতন কাননের, অঙ্কুরেতে,
জীবন জ্যোতি পাক তবে শিখা, তোমারি ছুঁয়াতে আলোতে,
যত ছিল কালো, ফুটে উঠুক শশী রবিতে পুণ্য প্রভাতে,
হ্রদয় মেলে, প্রাণ হে প্রসারে, অসীম ঋতে ঝর্নারও স্রোতে,
হউক সূচনা তবে ঐ বসন্তের, নির্মল মনে পাপড়ি দলে!
পেতে চাই কারে কোন সে প্রবাহে গোপন মনের প্রণিধানে,
হউক সূচনা তবে সেই ঘাঁটের, আলোতে; তেজে; স্পন্দনে,
নীরব বিহারে নিবিড় স্পর্শে প্রতিটি ক্ষণে এই আঁখিতে, অনুভবে,
জ্বালিয়ে দিও অমৃত বাতি গহন কালোতে তোমারি সব রচনাতে!
হউক সূচনা নূতন দিনের, এমন পূজাতে গভীর সেই প্রেমেতে,
যত আছে ক্ষত দিও ভরিয়ে প্রেমেতে, তোমারি পরশে শীতল হাতে,
প্রসার হউক তবে নব সূচনাতে অসীম আলোতে পুণ্য অঞ্জলিতে,
এসো হে নবীন মাহেন্দ্র ক্ষণে অমৃত স্থাপনে কলুষিত ঘটে,
বিজয় রথে ধ্বজা উড়ায়ে, হারানো দিনের প্রেমের বার্তা বয়ে!
বসে আছি নীরবে তোমারি পথে, আসবে তুমি ঝড়েরো শেষে,
শান্ত সকালে অসীম আলোতে নব মুকুলে ডালে ডালে সবুজেতে!





◍ ◍   দূর্গা   ◍ ◍
◍ ◍   - অমরেশ দেবনাথ   ◍ ◍
দিলে খুলে বন্ধ ঐ দ্বার যুগের পরে আবাহনে নিবিড় নিমন্ত্রণে,
দাঁড়িয়ে ছিলেম কত যুগে কোন আশাতে নীরব প্রদীপ জ্বেলে,
তোমার আমার মিলন ক্ষণে, দেবালয়ের মুক্ত আলোর স্রোতে,
ফোঁটেছে শশী চোখের কোনে মধুরো আলোয় ভাসিয়ে তবে শেষে!
কত দিন কত প্রহর কেটেছে বেলা তীব্র তাপে নীরব দহনে,
দহিত তবে ঐ নিদাঘে, শ্রাবনবিহীন তপ্ত মরুর, মরুঝড়ে,
তখন এলে বাদল মেঘে কালো কেশে বৈশাখীতে সুধা সৌরভে,
নামল ঝড় যুগের শেষে, কূল ভাসিয়ে সকল তীরে নীরব স্রোতে!
এসেছে ভ্রমর গভীর তানে, কোন যে সুরে গুনগুনিয়ে ছন্দালোকে,
মাতল এ প্রাণ তারই সুরে, কোন দোলাতে পূর্ণ্য তরঙ্গে ছন্দে ছন্দে!
উঠল বেজে সেই যে তার নূতন সুরে মধুরো গীতে আগমনীতে,
বারেবারে এমন দিনে, আসে প্রেম নব তরঙ্গে কোন সে জুয়ারে,
যাই যে ভেসে তারি স্রোতে, কূল হারিয়ে কোন সে দেশে নীরব বিহারে!
জানো কি সেই তৃষিত প্রাণ, ভিজে ফিরে অঞ্জলিতে তোমার অভিসারে,
কে যে আনে এমন বাদল এলোকেশে ঝড়েরো ছন্দে রুদ্রাণীতে!
অবাক আমি এমন লয়ে, বসেছিলেম দখিন দ্বারে মুক্ত হ্রদয়ে,
বাজাও ফিরে বারেবারে ফিরে ফিরে পত্র পুষ্পে নূতন কুসুমিতাতে!
কত প্রেম পায় যে ভাষা, সুরের তারে তোমার রাগিণী মাঝে,
কত স্মৃতি দোলায় এ মন, ঝর্ণা হয়ে শুকনো পাথর নুরিতে,
বসেছিলেম পথ যে চেয়ে, ভিজতে তবে তোমারি সলিলতে,
ভাসিয়ে দিলে সকল কূল ঐ ঋতিতে নব তরঙ্গে নবলোকে!
কে এসেছে কে এসেছে আমার চোখে, খোলা দ্বারে আগমনীতে?
দাঁড়িয়ে তুমি দু হাত মেলে নূতন সাজে ঝর্ণা হয়ে পুরনো বধূতে!
ঘরে ঘরে এমনি দূর্গা নূতন প্রাণে নব মুকুলে অমৃত সুধাতে,
দাঁড়িয়ে প্রেমিক বছর ধরে সাজবে পলাশ ঐ বসন্তে রাঙা পায়েতে,
জাগাও প্রেম বন্দনাতে হৃদয় মেলে কুসুম হয়ে ভোরের অঞ্জলিতে,
এসো এ প্রেম নব রচনায় ধূলার পরে বিকশিত কুসুম দলে!




Top of the page
All Pages     1    (2)     3    4    5    6    7 ...

Amazon & Flipkart Special Products

   


Top of the page