Home   |   About   |   Terms   |   Contact    
Read & Learn
 

মহান ক্রান্তিবীর চন্দ্রশেখর আজাদের কথা

চন্দ্রশেখর আজাদ

◄ All Articles







This article is regarding the true story of Great Chandrasekhar Azad.
Last updated on: .
Landguage: Bengali.



Chandrasekhar Azad

tree where Azad shot himself
( অলফ্রেড পার্কের এই গাছের তলাতেই, নিজের প্রতিজ্ঞা মত ইংরেজদের হাতে ধরা না দিয়ে নিজের শেষ গুলিতে নিজের প্রাণ দেন আজাদ )


◕ Bengali Story writing competition. More..


◕ তখনো তিনি ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে সম্পূর্ণ ঝাঁপিয়ে পড়েননি। এটা সেই সময়ের কথা। এক সময় মহান ক্রান্তিকারী চন্দ্রশেখর আজাদের আর্থিক পরিস্থিতি খুবই খারাব ছিল। তিনি ঝাঁসির, বুন্দেলখন্ডতে একটি কোম্পানিতে মোটর গাড়ী চালকের কাজ শুরু করেন। ঐ সময় বহু দিন গেছে, যখন উনি শুধু চানা (ছোলা) খেয়ে দিন কাটিয়েছেন। আজ খেতে পেরেছেন, কিন্তু কাল কি খাবেন, তার জোগাড় ছিল না।



তেমনি অতি কষ্টের দিনে, একদিন উনার সম্বলের শুধু ১ আনাই বেঁচে রইল। উনি সারাদিন কিছুই খেতে পেলেন না। খালি পেটে সারাদিন নিজের ডিউটি করতে লাগলেন, মোটর গাড়ী চালাতে লাগলেন। রাত হতে হতেই উনি ক্ষুধার যন্ত্রণায় কাতর হয়ে উঠলেন। সেই সময় তিনি দেখলেন এক জায়গাতে একজন চানা বিক্রি করছেন। তার কাছ থেকে চন্দ্রশেখর, উনার শেষ সম্বল এক আনাটি দিয়ে কিছু ভাজা চানা কিনলেন। যখন তিনি চানা খেতে লাগলেন তখন তিনি হঠাৎ লক্ষ্য করলেন, চানার মধ্যে একটি এক আনা দেখা যাচ্ছে। তিনি চমকে উঠলেন। উনার বিবেক উনাকে বলতে লাগলেন, “এই এক আনাটা আমার হতেই পারে না। আমি তো এটাকে আমার সততা, পরিশ্রম দিয়ে অর্জন করিনি। তবে এটা আমার কি ভাবে হবে?”

তিনি চানা খেয়ে এক ঘটি জল খেলেন। তারপর সোজা সেই চানা ওয়ালার কাছে চলে গেলেন। বললেন, “দেখো ভাই, তোমার এই এক আনাটি হয়তো চানার মধ্য পড়েছিল। তা আমার কাছে চলে এসেছে। এক আনার চানা বিক্রি করে এক আনাই যদি হারিয়ে ফেল তবে আর কি লাভ করবে? কি ব্যবসা করবে?” এই বলে তিনি তাকে এক আনাটি দিয়ে চলে গেলেন। সেই চানা ওয়ালা একবার সেই এক আনাটিকে, আরেকবার সেই তেজস্বী যুবকটিকে দেখতে থাকল।

আজাদ আমৃত্যু তার এই সততাকে ধরে রেখেছিলেন। কি এক আনা, কি হাজার, কোন কিছুই চন্দ্রশেখরকে তার এই সততা থেকে বিচলিত করতে পারেনি। ভারতমাতার এই মহান পুত্রকে, এই মহান ক্রান্তিকারীকে শত শত প্রণাম।



◕ Bengali Story writing competition. More..





Top of the page