Home   |   About   |   Terms   |   Library   |   Contact    
A platform for writers

ঝিনুকের বাটি

( 'নগেন্দ্র সাহিত্য পুরস্কার'- ২০২২-এর একটি নির্বাচিত গল্প)

-------- বিজ্ঞপ্তি ----------
■ 'স্বরচিত ছোট গল্প প্রতিযোগিতা ( ৬০০ শব্দের )', নভেম্বর, 2022 Details

◕ প্রবন্ধ প্রতিযোগিতা - সেপ্টেম্বর ২০২২, Result
--------------------------



All Bengali Stories    174    175    176    177    (178)    

ঝিনুকের বাটি
Writer: পোকিবিয়ার ( ছদ্মনাম )
( 'নগেন্দ্র সাহিত্য পুরস্কার'- ২০২২-এর একটি নির্বাচিত গল্প)


## ঝিনুকের বাটি

Writer: পোকিবিয়ার ( ছদ্মনাম )

অ্যান একজন ২৫বছরের মহিলা। তিনি বিভিন্ন জায়গায় নাচ দেখিয়ে পয়সা রোজগার করেন। তার আছে বলতে, তার বাড়িটা আর একটি সিন্দুক, যা তিনি কোনও দিনই খুলে দেখেন নি। নাচ না দেখালে তার খাবার জুটবে না। একদিন বিকেলে এক অনুষ্ঠানে নাচ দেখাতে গিয়ে মি.উইলসনের সঙ্গে বচসা বাঁধে। তিনি নাকি অ্যানকে পুরো পয়সা না দিয়ে কাজ করিয়ে নিয়েছেন। রেগে-মেগে সমুদ্রতটের ধারে গিয়ে শান্ত হবার চেষ্টা করেন তিনি। হঠাৎই 'চেগ' নামের একটি ছেলে এসে খবর দেয় যে, "মিস অ্যানি, আপনার বাড়িতে চোর এসেছে। সব চুরি হয়ে গিয়েছে। শিগগির বাড়ি যান।"

হঠাৎই ঘাবড়ে গিয়ে ঊর্ধ্বশ্বাসে বাড়ি পৌঁছান অ্যান, দেখেন পুলিশ এসেছে। জিজ্ঞাসাবাদের পরে জানা যায় যে, চোরেরা সবকিছু চুরি করে নিয়ে গেছে, শুধুমাত্র ঠুনকো ঝিনুকের বাটিটি ছাড়া, যা ওই সিন্দুকে ছিল। এইসব দেখে হাউহাউ করে চিৎকার করে উঠলেন অ্যান। সমস্ত টাকা-কড়ি ও ব্যবহারের জিনিস হারিয়ে পথে বসলেন তিনি। তিনি ভেবেই পেল না কিভাবে জীবন-যাপন করবেন।

এদিকে দিন যায় নাচ দেখিয়ে, কোনও মতে সংসার চলে অ্যানের। একদিন বিকেলে সমুদ্রতটে বসে তিনি রোজগারের পয়সা গুনছেন, তিনি দেখলেন যে তার একটি পাউরুটি ও এক বাটি ঝোল ছাড়া আর কিছুই হবে না। কোনও রকমে পেটের কোনাটা ভরবে মাত্র। রেগে-মেগে তিনি ঝিনুকের বাটিটা সমুদ্রের জলে ছুড়ে ফেলে দিতে যাচ্ছিলেন, হঠাৎই তার নজরে পড়ল বাটির তলায় কিরকমের একধরনের অদ্ভুত চিহ্ন। ভেবে-চিন্তে কিছুই উদ্ধার করতে পারলেন না। কাছাকাছি এক অ্যানটিক শপে অ্যান সেটি নিয়ে গেলেন। মিসেস কারলিন তার পরিচিত। অ্যানের পিতা-মাতা ও মিসেস কারলিন বহুদিনের পুরানো বন্ধু। অ্যানের পিতা-মাতা একটি সমুদ্র অভিযানে বেড়িয়ে প্রবল ঝড়ের মুখে পড়ে নিখোঁজ হন। আর সাত বছর ধরে তাদের কোনও খবর পাওয়া যায়নি। যাইহোক, অ্যানকে দেখা মাত্রই মিসেস কারলিন একগাল হেসে বলেন, "কি ব্যাপার সোনা, কি হয়েছে?"

অ্যান বলেন, "দেখুন তো এই বাটির পিছনে অদ্ভুত চিহ্নটি উদ্ধার করতে পারেন কিনা?"

মিসেস কারলিন তার বাক্স থেকে একটি আতশ-কাচ বের করে ভালো করে দেখতে লাগল। তারপর বইপত্র ঘেঁটে বললেন, "এ বাটি তুমি কোথা থেকে পেয়েছ?"

অ্যান উত্তর দেন, "কেন আমার সিন্দুকে ছিল?"

মিসেস কারলিন বললেন, "এ বাটি অত্যন্ত মূল্যবান একটি প্রত্নতাত্ত্বিক সামগ্রী। এটি শেষ ধর্মযুদ্ধের আমলে নাইটদের তৈরি করা। তারা এটি উপহার হিসেবে রানীকে দিয়েছিল, যার বর্তমান মূল্য প্রায় ৬০০ কোটি ডলার। এই ঝিনুকগুলিও দুর্লভ..."

মিসেস কারলিনের কথা শুনে অ্যানের চোখ কপালে উঠল। তিনি বিশ্বাসই করতে পারল না যে এটিও সম্ভব। দেরি না করে অ্যান মিসেস কারলিনকে বললেন অ্যানটিক অকশনের ব্যবস্থা করে দিতে এবং একদিন রাতের অ্যানটিক অকশনে অ্যান যথার্থ মূল্য দিয়ে বাটিটি বিক্রি করেদিলেন। তিনি শুধুমাত্র ধনীই হলেন না, তিনি জানতেও পারলেন যে, তিনি ধর্মযুদ্ধের সময়কার রানীদের বংশধর।
( সমাপ্ত )


Next Story

All Bengali Stories    174    175    176    177    (178)    


## Disclaimer: RiyaButu.com is not responsible for any wrong facts presented in the Stories / Poems / Essay / Articles / Audios by the Writers. The opinion, facts, issues etc are fully personal to the respective Writers. RiyaButu.com is not responsibe for that. We are strongly against copyright violation. Also we do not support any kind of superstition / child marriage / violence / animal torture or any kind of addiction like smoking, alcohol etc. ##


◕ RiyaButu.com, এই Website টি সম্পর্কে আপনার কোনও মতামত কিংবা পরামর্শ, কিংবা প্রশ্ন থাকলে নির্দ্বিধায় আমাদের বলুন। যোগাযোগ:
E-mail: riyabutu.com@gmail.com / riyabutu5@gmail.com
Phone No: +91 8974870845
Whatsapp No: +91 6009890717